সুসময়ের সুযোগ নিচ্ছেন কোচ

চন্দিকা হাথুরাসিংহে। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের হেড কোচ। বর্তমানে এদেশের ক্রিকেটের সবচেয়ে শক্তিশালী চরিত্র!

কাউকে প্রশ্রয় দিয়ে ক্ষতি করেছেন, আবার কাউকে দলে রেখেই বুঝিয়ে দেন তাকে তার পছন্দ নয়। প্রথমজন লেগস্পিনার যুবায়ের হোসেন লিখন আর পরেরজন নাসির হোসেন। আখেরে দু’জনেরই অবস্থানই প্রাথমিক দলের বাইরে! এটা যদি তার নেতিবাচক চরিত্র হয়, তবে ইতিবাচক হলো তিনি টাইগারদের সেরাটা বের করতে জানেন। সেই সাফল্য বেপরোয়া করে তুলেছে হাথুরাসিংহেকে। শঙ্কা এখানেই!

কোচের সঙ্গে লড়াইয়ে কখনো বলী হয়েছেন ক্রিকেট অপারেশন্স চেয়ারম্যান, কখনোবা প্রধান নির্বাচক। সংসদ সদস্য হয়েও লড়াইয়ে টিকতে না পেরে নাইমুর রহমান দুর্জয় এখন শুধুই বিসিবি পরিচালক। কোচ তাকে এড়িয়ে রিপোর্ট করতেন সভাপতিকে। সেই দ্বন্দ্বে শেষপর্যন্ত চন্দিকাকেই জয়ী ঘোষনা করেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান। দল নির্বাচনকে প্রত্যক্ষ ক্ষমতা দাবী করায় তার সঙ্গে দুরত্ব তৈরি হয় সবশেষ প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদের। প্রতিটি দল নির্বাচনেই সে সমস্যা প্রকট হতো। সেই রেশে শেষপর্যন্ত নির্বাচক কাঠামো বদলে যায়। আর সরে যেতে হয় ফারুক আহমেদকে।

তবে সাফল্যকে সঙ্গী করে যে খেলা খেলছেন চন্দিকা, তার শেষটা সচরাচর ভাল হয় না। এই যেমন কি অবলীলায় তিনি শেষ দেখে ফেললেন নাসিরের। বাদ দিয়ে দিলেন রুবেল হোসেন আর আল আমিনের মতো পেস বোলারকে। যে রুবেন ছিলেন অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড বিশ্বকাপের হিরো, সেই তিনি আরেকটা নিউজিল্যান্ড সফরে শুভাশিষ-এবাদতদের কাছে হেরে যাওয়া ক্রিকেটার। আল আমিনেরও এমন অবস্থান প্রাপ্য নয়।

তাদের আসল হার চন্দিকা হাথুরাসিংহের কাছে!

 

রাকিবুল হাসান

উপদেষ্টা, স্পোর্টস অলটাইম ডটকম

 

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন