ভারতের ব্যাটিং বনাম পাকিস্তানের বোলিং

এবারের ফাইনালটিকে বলা হচ্ছে ভারতের ব্যাটসম্যান বনাম পাকিস্তানের বোলারদের লড়াই। অবশ্য সবসময় সেটিই হয়ে থাকে। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ফাইনালে ভারত উঠেছে মূলত তাদের ব্যাটিং শক্তি দিয়ে। অন্যদিকে, পাকিস্তান উঠেছে বোলিং দাপট দেখিয়ে।

ব্যাটিংয়ে এবার ভারতের দুই ওপেনার রয়েছেন তাদের সেরা ফর্মে। শিখর ধাওয়ান ও রোহিত শর্মা আসরের সর্বোচ্চ দুই রান সংগ্রাহক।

শিখর ধাওয়ান ৪ ইনিংস খেলে করেছেন ৩১৭ রান। তার গড় ৭৯.২৫। আর রোহিত শর্মার ৪ ইনিংসে রান ৩০৪। তার গড় ১০১.৩৩।

ভারতের ব্যাটসম্যানরা যেমন রানের দিক থেকে সবচেয়ে এগিয়ে তেমনি আসরের সবচেয়ে বেশি উইকেট শিকারী একজন পাকিস্তানি। তিনি পেসার হাসান আলী। ইংল্যান্ডের ফ্ল্যাট উইকেটে ৪ ইনিংসে এ পর্যন্ত ১০টি উইকেট নিয়েছেন তিনি। ইকোনমিও অনেক কম- ৪.৫২।

আরেক পেসার জুনায়েদ খানও শীর্ষ ৫ জনের তালিকায় রয়েছেন। ৩ ইনিংসে জুনায়েদের সংগ্রহ ৭ উইকেট। তার ইকোনমি ৪.৮৫।

তবে ফাইনালের আগে যে ব্যাটসম্যানের কথা না বললেই নয় তিনি হলেন ভিরাট কোহলি। অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি যে, এবারের আসরে কোহলির রানের গড় আড়াইশোর ওপরে। এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান ৪ ইনিংসে এ পর্যন্ত রান করেছেন ২৫৩। ৪ ইনিংসের মধ্যে ৩টিতেই অপরাজিত ছিলেন কোহলি।  এ কারণে তার গড়ও ২৫৩। স্ট্রাইক রেট ১০০.৩৯। সর্বোচ্চ অপরাজিত ৯৬ রান।

দুই দলের মুখোমুখি পরিসংখ্যানে অবশ্য অনেক এগিয়ে পাকিস্তান। এ পর্যন্ত ১২৮টি ওয়ানডেতে মোকাবেলা করেছে এই দুদই দল। যার মধ্যে পাকিস্তানের জয় ৭২টিতে। ভারতের জয় ৫২ ম্যাচে। আর পরিত্যক্ত হয়েছে ৪টি ম্যাচ।

তবে ভারতের জন্য অনুপ্রেরণা হলো গ্রুপ পর্বের ম্যাচ, যেখানে নিজেরা ৩১৯ রান তুলে পাকিস্তানকে ১৬৪ রানে অলআউট করেছিলো ভারত।

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন