ক্রিকেটের সবচেয়ে আলোচিত শূন্য

নিজের প্রথম ট্রিপল সেঞ্চুরির পর স্যার ডন ব্র্যাডম্যান

১৪ই আগস্ট ক্রিকেট ইতিহাসের এক ঐতিহাসিক দিন। এই দিনটিতেই ক্যারিয়ারে শেষবারের মতো ব্যাট হাতে নেমেছিলেন সর্বকালের সেরা ব্যাটসম্যান অস্ট্রেলিয়ার স্যার ডন ব্র্যাডম্যান। ৪ রান করলেই ১০০ গড় নিয়ে অবসরে যেতে পারতেন। অথচ ব্র্যাডম্যান সেদিন শূন্য রানে আউট হন। আর সেই শূন্য হয়ে আছে ক্রিকেটের সবচেয়ে আলোচিত শূন্য।

১৯৪৮ সালের অ্যাশেজ। ইংল্যান্ড সফর করছে অস্ট্রেলিয়া। ৪ টেস্টের ৩টিতেই জিতে সিরিজ জিতে নিয়েছে স্যার ডন ব্র্যাডম্যানের অজি দল। শেষ টেস্ট হবে লন্ডনের ওভালে। ব্রিটেনের রাণী থেকে সাধারণ মানুষ – সবারই আগ্রহ নিয়মরক্ষার সেই টেস্ট নিয়ে। কারণ, সেটিই যে স্যার ডনের শেষ ম্যাচ।

ম্যাচের ভেন্যু ওভাল। এই টেস্টের আগে ওভালে ব্র্যাডম্যানের সবশেষ ৩টি ইনিংস ছিলো ২৩২, ২৪৪ ও ৭৭ রানের। নিজের প্রিয় মাঠ ওভালে শেষ ইনিংসে ক্রিকেটের ডন অন্তত একটি সেঞ্চুরি করবেন সেটাই ভেবেছিলো সবাই।

তখন ব্র্যাডম্যানের রানের গড় ১০১.৩৯। প্রথমদিন থেকেই গ্যালারি কানায় কানায় পূর্ণ। আগে ব্যাটিংয়ে নেমে মাত্র ৫২ রানে অলআউট হলো ইংল্যান্ড।

ইংলিশদের ব্যাটিং লাইনআপ এতোই ভঙ্গুর ছিলো যে, সবাই জানতো অস্ট্রেলিয়াকে দ্বিতীয় ইনিংসে নামতে হবে না। অর্থাৎ অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংসেই হবে ব্র্যাডম্যানের ক্যারিয়ারের শেষ ব্যাটিং। ১১৭ রান করে অস্ট্রেলিয়ার ওপেনিং জুটি ভাঙলে মাঠে নামেন স্যার ডন।

মাত্র ৪ রান করলেই গড় হবে ১০০।

এরিক হলিসের প্রথম বলটা খেললেন ঠিকভাবেই। কিন্তু দ্বিতীয় বলেই সেই অঘটন। হলিসের গুগলি বুঝতে না পেরে বোল্ড ব্র্যাডম্যান। শূন্য রানে আউট হয়ে তিনি নিজে যতটা না হতাশ হলেন তারচেয়েও বেশি হতাশ হলো পুরো বিশ্ব। টেস্টে ব্র্যাডম্যানের গড় দাড়ালো ৯৯.৯৪।

ক্রিকেটে এই শূন্য হয়ে থাকলো এক ঐতিহাসিক ঘটনা হিসেবে। এই শূন্য নিয়ে যত আলোচনা হয়েছে আর কোনো শূন্য নিয়ে সেরকম কখনোই হয়নি এবং ভবিষ্যতেও হবে না। আর এই জায়গাতেই স্যার ডনের বিশেষত্ব।

শেষবেলায় পারলেন না, কিন্তু তার এই না পারাটাও হয়ে গেলো কিংবদন্তী কাহিনী। যেটি ব্র্যাডম্যানকে সর্বকালের সেরার আসনে বসিয়েছে আরও পোক্ত কোরে।

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য করুন